দিঘলীয়া ইউপি চেয়ারম্যান নিবার্চনে মনোনয়ন প্রত্যাশী যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম

প্রকাশিত: ৭:২৫ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

পারভেজ ইসলামঃ ২ ডিসেম্বর২০২০ ইং।

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি রাজনৈতিক ব্যক্তি-ত্বের অধিকারী রেজাউল করিম। তিনি এক সময় দিঘলীয়ার রাজনীতিতে আসেন, যখন ইউনিয়নটির আওয়ামী রাজনীতির প্রচন্ড খড়া চলছিল।
তার সুদৃঢ় নেতৃত্ব ও গঠণ মূলক সিদ্ধান্তে দিঘলীয়া ইউনিয়নটিতে আওয়ামী রাজনীতি সু-দৃঢ় ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত হয়। রাজনৈতিক জীবনে রেজাউল করিম ১৯৯৫ সালে দড়গ্রাম সরকারী ভিকু মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক পদে নির্বাচিত হন।

১৯৯৭ সালে দিঘলীয়া ইউনিয়ন ছাত্র-লীগের নেতৃত্বে অমূল পরির্বতন এনে, আওয়ামী নেতৃত্ব সুসংহত করতে ২০০১ সালে দিঘলীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব পান। ২০০৩ সালে তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতির পদ লাভ করেন। ২০০৪ সালে তিনি সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। নেতৃত্বের সফলতার কারণে তিনি ২০১৫ সালে এম বোরহান উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির অবিভাবক সদস্য পদে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেন।
দিঘলীয়া ইউনিয়নের একমাত্র হাট চাচিতারা বাজার কমিটির দুই দুইবার সভাপতি নির্বাচিত হন। দীর্ঘ নেতৃত্বে সফলতায় তিনি ২০১৭ সালের ৫ই মার্চ সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব পান।

পরিক্ষীত নেতৃত্ব ও আওয়ামী আদর্শে বিশ্বাসী এই সৈনিক কে মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন এমপি ২০১৯ সালে সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতির দায়িত্বে অধিষ্ঠিত করেন। অদ্যাবদি যুবলীগের সভাপিত হিসাবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

সাটুরিয়া উপজেলার হাজার জনতার হৃদয়ের স্পন্দন, তার বহুমুখী অবদানের কারণে দিঘলীয়া ইউনিয়নবাসী তাকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায়। চেয়াম্যান নির্বাচিত হলে এই পরিশ্রমী, বিনয়ী, ত্যাগী, সু- সংগঠক সব সময় এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাবে প্রত্যাশা অত্র ইউনিয়বাসীর।

এ ব্যাপারে মোঃ রেজাউল করিম আমাদের সংবাদ ডট কম কে বলেন, আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান। রাজনীতি আমার নেশা । দিঘলীয়া ইউনিয়নের চাচিতারা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করে আমি নিজেকে স্বার্থক মনে করছি। জনগণ আমাকে, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাই। জনগনের আকাংঙ্খার প্রতি আমি শ্রদ্ধাশীল।

তিনি আরো বলেন আমি মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন এমপি ও সাটুরিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাঃ আব্দুল মজিদ ফটো কাকা সহ জেলা- উপজেলা ও ইউনিয়নের সকল নেতৃবৃন্দের সুপরামর্শ ও সমর্থন প্রত্যাশা করি, মনোনয়ন পেলে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হব-ইনশাল্লাহ।

২ডিসেম্বর/বুধবার/২০২০ইং।