সাটুরিয়ায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সেচ্ছাসেবক কর্মীদের আন্দোলন

প্রকাশিত: ৯:৩৭ অপরাহ্ণ, মে ২৫, ২০২১

২৫ মে ২০২১

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সেচ্ছাসেবকদের মাসিক বেতন ভাতা আত্নসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ১৬১ জন সেচ্ছাসেবক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভিতর ও সড়কে বেতন ভাতার দাবীতে অবরোধ করে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার অপসারণ দাবী করেন। এসময় সাটুরিয়া গোলড়া মানিকগঞ্জ সড়কের প্রায় দেড় ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ হয়ে পরে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে আন্দোলনকারীরা আন্দোলন থেকে সরে আসে।

জানা গেছে, সাটুরিয়া উপজেলার নয়টি ইউনিয়ন থেকে ১৬১ জন সেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেওয়া হয়। এদের মাসিক বেতন বা সম্মানি দেওয়া হয় ৩ হাজার ৬ শত টাকা। ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিকের নিয়ন্ত্রনে তাদের কাজ করতে হবে। কাজ করলে হাজিরা পাবে আর কাজ না করলে হাজিরা পাবে না। এই নিয়মেই সেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে আন্দোলনকারী জানান, আমাদের নিয়োগ দেওয়ার পর থেকেই কোন মাসে ৩ তিন হাজার ৬ শত টাকা পাই না। প্রতিমাসেরই টাকা কর্তন করা হয় কাজ না করার অপরাধে। আমরা নিয়োগ বিধি অনুসারে প্রতিদিন কাজ করে থাকি। তাদের দাবী আমাদের মাসিক বেতন ভাতা কম দিয়ে বাকী টাকা আত্নসাৎ করা হয় বলে তারা দাবী করেন।

অপরদিকে সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মামুন উর রশিদ জানান, আন্দোলনকারীরা কাজ না করেই সরকারি টাকা নিতে চাই। এদের কাজ হচ্ছে এলাকার যেকোন বিষয়ে আমাদের অবগত করা। এরা তা না করে প্রতিমাসে আসে সম্মানি নিতে। নিয়োগ বিধি অনুযায়ী কাজ করলে টাকা পাবে আর কাজ না করলে টাকা পাবে না। সেচ্ছাসেবকদের সপ্তাহে একদিন কমিউনিটি ক্লিনিকে হাজিরা দিতে হবে। এছাড়া বিষ প্রাণ ও সাপে কেটেছে এমন সব রোগীদের তথ্য প্রতিদিন তাদের রির্পোট করার কথা। তারা তা না করে মাসিক সম্মানি ভাতা নিতে আসে। হাজিরা অনুয়ায়ী টাকা দিতে চাইলে তারা তিন হাজার ৬ শত টাকা দাবী করেন। তাদের দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায় হাসপাতালে এসে আন্দোলন করেন।

সাটুরিয়া থানার ওসি মো. আমরাফুল আলম বলেন, সেচ্ছাসেবক কর্মীরা তাদের বেতন ভাতার জন্য হাসপাতালের ভিতর ও সড়কে আন্দোলন করছিল। জনস্বার্থের কথা বিবেচনা করে তাদের সমস্যা মিটিয়ে দেওয়ার আশ্বাসে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। সরকারি অফিস রক্ষার স্বার্থে তাদের চাওয়া পাওয়া মিটিয়ে দেওয়ার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়।